মেনু নির্বাচন করুন

ফুলতলা টেকনিক্যাল এন্ড বি এম কলেজ।

  • সংক্ষিপ্ত বর্ণনা
  • প্রতিষ্ঠাকাল
  • ইতিহাস
  • প্রধান শিক্ষক/ অধ্যক্ষ
  • অন্যান্য শিক্ষকদের তালিকা
  • ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা (শ্রেণীভিত্তিক)
  • পাশের হার
  • বর্তমান পরিচালনা কমিটির তথ্য
  • বিগত ৫ বছরের সমাপনী/পাবলিক পরীক্ষার ফলাফল
  • শিক্ষাবৃত্ত তথ্যসমুহ
  • অর্জন
  • ভবিষৎ পরিকল্পনা
  • ফটোগ্যালারী
  • যোগাযোগ
  • মেধাবী ছাত্রবৃন্দ

 

কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জনাব মোঃ খায়রুল ইসলাম ফুলতলা এলাকায় একটি কারিগরি কলেজ প্রতিষ্ঠার চিন্তা করে ২০০৩ ইং সালে এলাকার সর্বজন শ্রোদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব জনাব মোঃ আব্দুর রাজ্জাক এবং পরিবারে সদস্য জনাব মোঃ আসাদুজ্জামান মোঃ মনিরুজ্জমান, মোঃ অহিদুজ্জামান, মোঃ নুরুজ্জামান (ইউএনও) অধ্যাঃ মোঃ কামরুজ্জামান, মোঃ রোকনুজ্জামান,  সুলতানা জামান, সাহানা জামান, রেহানা, কাওছার, নাসিমা খানম,  অধ্যাঃ রেজাউল ইসলাম সহ এলাকার বেশ কিছু শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গ যেমন, আবুল হোসেন মোড়ল, ফরিদগাজী, মোঃ মোকছেদ আলী মোড়ল, আবু সাইদ বাদল ইউপি চেয়ারম্যান এদের সঙ্গে আলোচনা করেন। ১০ জানুয়ারী ২০০৩ সালে জনাব আব্দুর রাজ্জাক সাহেবের বাড়ীতে এক সভা আহবান করা হয়। উক্ত সভায় এলাকায় একটি কলেজ প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত এবং তার  নাম নির্বাচন করা হয়, ফুলতলা টেক: এন্ড বি এম কলেজ। সিদ্ধান্ত হয় কলেজটি পরিচালনার সার্বিক দায়িত্ব ভার গ্রহন করবে জনাব আঃ রাজ্জাক। সিদ্ধান্তের আলোকে দামোদর হাই স্কুলের সামনে তৌহিদুল আলম বুলবুলের বাড়ী ভাড়া নিয়ে  কার্যক্রম শুরু করা হয়। ৩/৭/২০০৫ ইং তারিখে কলেজটি বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক একাডেমিক স্মীকৃতি লাভ করে। প্রথম বছরে বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত ২টি ট্রেড ১) কম্পিউটার অপারেশন  ৩০ জন, ২) সেক্রেটারিয়াল সায়েন্স এ ৩০ জন ছাত্র ছাত্রী ভর্তি করা হয়। ২০০৬ সালে বরনপাড়া গ্রামের জনাব ইব্রাহীম গাজীর নিকট থেকে এক একরে জমি ক্রয় করে আব্দুর রাজ্জাক ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহযোগীতায় নিজস্ব ভবন তৈরী করা হয়। উক্ত ভবনে ১ ফেব্রুয়ারী ২০০৭ সালে কার্যক্রম শুরু হয়। ২০০৭ সালে অত্র কলেজের  ছাত্র-ছাত্রীরা পাবলিক পরীক্ষায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখে যার ধারা বাহিকতায় বর্তমানে কলেজের পাশের হার শতভাগে উন্নীত হয়েছে। কারিগরি বোর্ড ১৪-৬-২০১০ সালে নতুন ২টি ট্রেড হিসাব রক্ষন এবং উদ্দ্যোক্তা উন্নয়ন এর অনুমোদন প্রদান করে। একই বছর ১৩/১২/২০১০ ইং তারিখ থেকে বোর্ড এস,এস,সি ভোকেশনাল শাখায় ২টি (১) বিল্ডিং মেইনটেন্যান্স (২) জেনারেল ইলেকট্রিক্যাল ওয়ার্কস শাখা অনুমোদন প্রদান করে। কলেজটি ৩১ মে ২০১০ সালে এমপিও ভুক্তি হয়। কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি দায়িত্ব পালন করেন তৎকালিন গোপালগঞ্জ জেলার এন,ডি,সি জনাব মোঃ নুরুজ্জামান। বর্তমান সভাপতি জনাব মোঃ আসাদুজ্জামান।২০১৩ ইং সালে কলেজে ব্যাংকিং ট্রেডের অনুমেদন পাওয়া যায়।  এ পর্যায়ে কলেজ শাখায় মোট ৩০০ জন, ভোকেশনাল শাখায় ১২০ জন সর্ব মোট ৪২০ জন ছাত্র-ছাত্রী অধ্যায়ন করছে। ব্যবস্থাপনা কমিটির নিবিড় তত্ত্ববধান ও শিক্ষক কর্মচারীদের নিরলস প্রচেষ্টা এবং ছাত্র-ছাত্রীদের সার্বিক সহযোগিতা এভাবে অব্যাহত থাকলে আশা করা যায় এ প্রতিষ্ঠানটি দেশের দক্ষ জনশক্তি গঠন এবং জ্ঞান  বিস্তারের এক আলোকবর্তীকা রূপে তার যাত্রা অব্যাহত রাখবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

 

কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জনাব মোঃ খায়রুল ইসলাম ফুলতলা এলাকায় একটি কারিগরি কলেজ প্রতিষ্ঠার চিন্তা করে ২০০৩ ইং সালে এলাকার সর্বজন শ্রোদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব জনাব মোঃ আব্দুর রাজ্জাক এবং পরিবারে সদস্য জনাব মোঃ আসাদুজ্জামান মোঃ মনিরুজ্জমান, মোঃ অহিদুজ্জামান, মোঃ নুরুজ্জামান (ইউএনও) অধ্যাঃ মোঃ কামরুজ্জামান, মোঃ রোকনুজ্জামান,  সুলতানা জামান, সাহানা জামান, রেহানা, কাওছার, নাসিমা খানম,  অধ্যাঃ রেজাউল ইসলাম সহ এলাকার বেশ কিছু শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গ যেমন, আবুল হোসেন মোড়ল, ফরিদগাজী, মোঃ মোকছেদ আলী মোড়ল, আবু সাইদ বাদল ইউপি চেয়ারম্যান এদের সঙ্গে আলোচনা করেন। ১০ জানুয়ারী ২০০৩ সালে জনাব আব্দুর রাজ্জাক সাহেবের বাড়ীতে এক সভা আহবান করা হয়। উক্ত সভায় এলাকায় একটি কলেজ প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত এবং তার  নাম নির্বাচন করা হয়, ফুলতলা টেক: এন্ড বি এম কলেজ। সিদ্ধান্ত হয় কলেজটি পরিচালনার সার্বিক দায়িত্ব ভার গ্রহন করবে জনাব আঃ রাজ্জাক। সিদ্ধান্তের আলোকে দামোদর হাই স্কুলের সামনে তৌহিদুল আলম বুলবুলের বাড়ী ভাড়া নিয়ে  কার্যক্রম শুরু করা হয়। ৩/৭/২০০৫ ইং তারিখে কলেজটি বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক একাডেমিক স্মীকৃতি লাভ করে। প্রথম বছরে বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত ২টি ট্রেড ১) কম্পিউটার অপারেশন  ৩০ জন, ২) সেক্রেটারিয়াল সায়েন্স এ ৩০ জন ছাত্র ছাত্রী ভর্তি করা হয়। ২০০৬ সালে বরনপাড়া গ্রামের জনাব ইব্রাহীম গাজীর নিকট থেকে এক একরে জমি ক্রয় করে আব্দুর রাজ্জাক ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহযোগীতায় নিজস্ব ভবন তৈরী করা হয়। উক্ত ভবনে ১ ফেব্রুয়ারী ২০০৭ সালে কার্যক্রম শুরু হয়। ২০০৭ সালে অত্র কলেজের  ছাত্র-ছাত্রীরা পাবলিক পরীক্ষায় কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখে যার ধারা বাহিকতায় বর্তমানে কলেজের পাশের হার শতভাগে উন্নীত হয়েছে। কারিগরি বোর্ড ১৪-৬-২০১০ সালে নতুন ২টি ট্রেড হিসাব রক্ষন এবং উদ্দ্যোক্তা উন্নয়ন এর অনুমোদন প্রদান করে। একই বছর ১৩/১২/২০১০ ইং তারিখ থেকে বোর্ড এস,এস,সি ভোকেশনাল শাখায় ২টি (১) বিল্ডিং মেইনটেন্যান্স (২) জেনারেল ইলেকট্রিক্যাল ওয়ার্কস শাখা অনুমোদন প্রদান করে। কলেজটি ৩১ মে ২০১০ সালে এমপিও ভুক্তি হয়। কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি দায়িত্ব পালন করেন তৎকালিন গোপালগঞ্জ জেলার এন,ডি,সি জনাব মোঃ নুরুজ্জামান। বর্তমান সভাপতি জনাব মোঃ আসাদুজ্জামান।২০১৩ ইং সালে কলেজে ব্যাংকিং ট্রেডের অনুমেদন পাওয়া যায়।  এ পর্যায়ে কলেজ শাখায় মোট ৩০০ জন, ভোকেশনাল শাখায় ১২০ জন সর্ব মোট ৪২০ জন ছাত্র-ছাত্রী অধ্যায়ন করছে। ব্যবস্থাপনা কমিটির নিবিড় তত্ত্ববধান ও শিক্ষক কর্মচারীদের নিরলস প্রচেষ্টা এবং ছাত্র-ছাত্রীদের সার্বিক সহযোগিতা এভাবে অব্যাহত থাকলে আশা করা যায় এ প্রতিষ্ঠানটি দেশের দক্ষ জনশক্তি গঠন এবং জ্ঞান  বিস্তারের এক আলোকবর্তীকা রূপে তার যাত্রা অব্যাহত রাখবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
মুহাম্মাদ খায়রুল ইসলাম। ০১৮৫৬-৪১০৪২০ sultanazaman1975@gmail.com

ছবি নাম মোবাইল ইমেইল
সুলতানা জামান ০৯১২৩৯৮২৪০ sultanazaman1975@gmail.com
মো: সিরাজুল ইসলাম ০১৮৫৬৪১০৪২৩ mdsirajul081@gamail.com

শ্রেনী

ছাত্র -ছাত্রী সংখ্যা

একাদশ

১৫০জন

দ্বাদশ

১০০ জন

১০ম

৫০ জন

৯ম

৫৭ জন

৯৮%

ক্র: নং

        নাম

পদের নাম

মন্তব্য

০১

জনাব, মো: আসাদুজ্জামান

সভাপতি

সংস্থার সভাপাতি

০২

অধ্যক্ষ/ প্রতিনিধি খুলনা পলিটেকনিক্যাল ইন্সটিটিউট

সদস্য

বাকাশিবো মনোনীত শিক্ষানুরাগী

০৩

মো: কামরুজ্জামান

সদস্য

জেলা প্রশাসক কর্তৃক মনোনীত শিক্ষানুরাগী

০৪

মো:অহিদুজ্জামান

সদস্য

সংস্থা প্রধান কর্তৃক মনোনীত

০৫

জনাব, সুলতানা জামান

সদস্য

শিক্ষক প্রতিনিধি

০৬

জনাব,মাজহারুল ইসলাম

সদস্য

শিক্ষক প্রতিনিধি

০৭

জনাব,হেনারা বেগম

অভিবাবক সদস্য

সংস্থা কর্তৃক মনোনীত

০৮

জনাব, মোকাদ্দেস আলী

অভিবাবক সদস্য

সংস্থা কর্তৃক মনোনীত

০৯

অধ্যক্ষ ফুলতলা টেকনিক্যাল এন্ড বি,এম কলেজ।

সদস্য সচিব

পদাধিকারবলে

পাশের বছর

পাশের হার

২০১৪

৮০%

২০১৩

৯৭%

২০১২

৯৮%

২০১১

৯৭%

২০১০

৯৩%

0


Share with :